Wednesday, July 24, 2024
দেশ

লোকসভা ভোটের আগেই শুরু হবে রাম মন্দির নির্মাণের কাজ: রামবিলাস বেদান্তি

মুম্বাই: ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের আগেই অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরির কাজ শুরু হয়ে যাবে। রবিবার এমনই দাবি করলেন প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ ও রাম জন্মভূমি ন্যাস প্রধান রামবিলাস বেদান্তি। তাঁর এমন মন্তব্যে ফের বিতর্ক তৈরি হল রাজনৈতিক মহলে। এদিন মুম্বাইয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রামবিলাস বেদান্তি বলেন, অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরি করা হবে। এনিয়ে বদ্ধপরিকর বিজেপি। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগেই মন্দির নির্মানের কাজ শুরু হয়ে যাবে।

বেদান্তি বলেন, ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে চলতি বছরই অযোধ্যায় রাম মন্দির তৈরির কাজ শুরু হয়ে যাবে। আর মসজিদ নির্মান করা হবে লখনউয়ে। হিন্দু ও মুসলিমরা হাতে হাত মিলিয়ে এ কাজে অংশ নেবে। তাঁকে সমর্থন জানিয়ে উত্তরপ্রদেশের বিজেপি মুখপাত্র রাজেশ ত্রিপাঠী বলেন, অযোধ্যায় রাম মন্দির চাক্ষুস করার অপেক্ষায় রয়েছেন রামভক্তরা। পাশাপাশি তাঁর আশা, রাম মন্দিরের পক্ষেই রায় দেবে সুপ্রিম কোর্ট।

এদিকে রাম বিলাসের মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করেছে সর্বভারতীয় মুসলিম পারসোনাল ল বোর্ড এবং লখনউয়ের ইমাম খালিদ রশিদ ফিরাঙ্গি মেহলি। মেহলির বক্তব্য, যে মামলাটি শীর্ষ আদালতের অধীনে রয়েছে, তা নিয়ে কোনও রাজনৈতিক দল বা ব্যক্তিবিশেষের মন্তব্য করা সাজে না। এ নিয়ে রায় দিতে পারে একমাত্র সুপ্রিম কোর্টই।

রাম মন্দির নির্মানের জন্য তাহলে কি আদালতের নির্দেশের কোনও প্রয়োজন নেই? বিষয়টি যেহেতু সুপ্রিম কোর্টের বিচারাধীন সেখানে রায়ের অপেক্ষা না করেই কি রাম মন্দির তৈরি হবে? এ প্রসঙ্গে বেদান্তির মন্তব্য, আদালতের কোনও আদেশের প্রয়োজন নেই। বাবর যখন রাম মন্দির ভাঙেন তখন কোনও আদালতের রায় হাতে করে আনেননি। দেশের প্রতিটি হিন্দুর আবেগের বিষয় রাম মন্দির নির্মান। ১৯৪৯ সালে যখন রামলালা আবির্ভূত হন তখন তিনি আদালতের রায় নেননি বলেও জানান রামবিলাস বেদান্তি।