Monday, July 22, 2024
রাজ্য​

পরনে সাদামাটা শাড়ি, ভাড়ার গাড়িতে চেপে বিধানসভায়, শপথ নিলেন চন্দনা বাউরি

কলকাতা: একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি আশানুরূপ ফল না করতে পারলেও আলোচনায় উঠে এসেছেন দিনমজুরের স্ত্রী চন্দনা বাউরি (Chandana Bauri)। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁকে নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। যেখানে তারকা প্রার্থীরা পারিনি সেখানে চন্দনা বাউরি সবাইকে চমক দিয়েছেন। পিছিয়ে পড়া মানুষের কাছে অনুপ্রেরণা হয়ে উঠেছেন তিনি।

আজ শপথ, তাঁকে বিধানসভায় পৌঁছতে হবে। তাই দাদার গাড়ি ভাড়া করে বাঁকুড়ার শালতোড়া (Saltora Assembly) থেকে কলকাতায় এসে পৌঁছন বিজেপির নবনির্বাচিত বিধায়ক (BJP MLA) চন্দনা বাউরি। বিধানসভায় শপথ গ্রহণ করেন। বিধানসভায় দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, আমার মতো একজন গরিব মানুষকে টিকিট দিয়েছে বিজেপি, এটাই অনেক।

কথাগুলো বলার সময় চকচকে হলুদ-লাল মাস্কের আড়ালেও আলো ফুটে ওঠে চন্দনার চোখে-মুখে। তিনি বলেন, একবার কলকাতায় আসতে অনেক খরচ। তাও এলাম। জনগণ আমায় জিতিয়ে এনেছে, তাই আসতেই হবে।

বিজেপির সবথেকে দরিদ্রতম প্রার্থী চন্দনার স্বামী রাজমিস্ত্রী। দুই সন্তানের মা চন্দনা পান্তা খেয়ে দিন-রাত পাড়ায় পাড়ায় প্রচার চালিয়েছিলেন। মানুষ তাঁকে নিরাশ করেনি, শালতোড়ার মানুষ ভোট দিয়ে চন্দনা জয়যুক্ত করেছে। নির্বাচনের হলফনামা অনুযায়ী, ৩০ বছর বয়সী চন্দনার সব ধরণের স্থাবর-অস্থাবর সম্পদের মূল্য ৩১ হাজার ৯৮৫ টাকা। সম্বল তিনটি গরু ও তিনটি ছাগল।

পাড়া-প্রতিবেশীর বেশ কয়েকজন চন্দনাকে অনলাইনে মনোনয়ন জমা দেওয়ার কথা বলেন। কিন্তু বিজেপি যে তাঁর মতো কাউকে মনোনয়ন দেবে সেটা তাঁর অজানাই ছিল। আর যখন তিনি মনোনয়ন পেলেন, সেই খবরটাও এক প্রতিবেশীর কাছ থেকে জেনেছিলেন চন্দনা।

বিধানসভা ভোটে চন্দনা বাউরি জিতে দেখিয়ে দিলেন মানুষের ভোটে জিতে গেলে হাই-প্রোফাইল অথবা সেলিব্রেটি হওয়া লাগে না! চন্দনা বাউরি জানান, এবার তিনি এলাকার মানুষের পাশে থেকে, এলাকার মানুষের উন্নয়নের স্বপ্ন পূরণ করবেন। প্রথমে এলাকার রাস্তা-ঘাট তৈরির কাজে মন দিতে চান। পাশাপাশি, এলাকার মানুষের জন্যে শ্রীঘ্রই জলের সু-বন্দোবস্ত করতে চান।