Sunday, July 21, 2024
আন্তর্জাতিক

জার্মানির মুসলিম অনুষ্ঠানে শূকরের সস পরিবেশন

বার্লিন: জার্মানির একটি মুসলিম সম্মেলনে খাদ্য তালিকায় দেয়া হয়েছিল শূকরের রক্ত এবং মাংস দিয়ে তৈরি ‘ব্লাড সসেজ’। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, বিভিন্ন ধর্মের মানুষজনের কথা চিন্তা করে ওই খাবারগুলো বাছাই করা হয়েছিল। তবে কারও ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত লাগলে তার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এ সপ্তাহের শুরুর দিকে বার্লিনে ওই সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হোর্স্ট শিহোফেরের উদ্যোগেই ওই অনুষ্ঠানটি আয়োজিত হয়, যিনি গত মার্চ মাসে মন্তব্য করেছিলেন, জার্মানিতে ইসলাম খাপ খায় না। ওই ইসলামিক সম্মেলনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ ব্যক্তি মুসলমান ছিলেন বলে জানা গেছে। ইসলাম ধর্ম অনুসারে, শূকর খাওয়া মুসলমানদের জন্য নিষিদ্ধ।

যে সসেজটি ওই অনুষ্ঠানে খেতে দেয়া হয়েছিল, তার স্থানীয় নাম ব্লাড সসেজ। যেটি শূকরের রক্ত এবং মাস দিয়ে তৈরি করা হয়। এ ঘটনার পর জার্মানির সাংবাদিক টেনচে ওযডামার টুইটারে লিখেছেন, শিহোফেরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এর মাধ্যমে কি বার্তা দিতে চায়? যারা শুকর খায় না, সেই মুসলমানদের জন্য খানিকটা শ্রদ্ধাবোধ থাকা উচিত।

জানা গেছে, সম্মেলনের শুরুতে  হোর্স্ট শিহোফের বলেছিলেন, তিনি জার্মানিতে ‘জার্মান ইসলাম’ দেখতে চান। জার্মানির কিছু সংবাদপত্র লিখেছে, ২০০৬ সালে জার্মানির প্রথম ইসলামিক কনফারেন্সে হ্যাম আকারে শূকরের মাংস দেয়া হয়েছিল। গত মার্চ মাসে শিহোফের বলেছিলেন, জার্মানিতে ইসলাম খাপ খায় না, কারণ খৃষ্টান ধর্মের আদলেই জার্মানি গড়ে উঠেছে।

তিনি বলেছিলেন, যে মুসলমানরা আমাদের মধ্যে বসবাস করছেন, তারা অবশ্যই জার্মান…কিন্তু তার মানে এই নয় যে, অন্যদের জন্য ভুলভাবে ভাবতে গিয়ে আমরা নিজেদের রীতি বা ঐতিহ্যকে জলাঞ্জলি দেব।