Wednesday, July 24, 2024
দেশ

স্বাধীনতার ইতিহাসে এই প্রথম, বাংলা-সহ ১৩টি আঞ্চলিক ভাষায় ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স

নয়াদিল্লি: ইংরেজি মাতৃভাষা না হওয়ায় অনেকেরই উচ্চশিক্ষার সময় ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে গিয়ে ভাষাগত সমস্যায় পড়তে হয়। কেননা আমাদের দেশে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের বইগুলি ইংরেজিতে লেখা হয়। সেই সমস্যা সমাধানে এগিয়ে এল দেশের ১৪টি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ। তাঁরা সাফ জানালো, ইংরেজির পাশাপাশি ১৩টি আঞ্চলিক ভাষাতে ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স করতে পারবেন পড়ুয়ারা। সম্প্রতি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে ‘অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল ফর টেকনিক্যাল এডুকেশন’ (AICTE)। এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন উপ-রাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু এবং কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান।

AICTE জানিয়েছে, মাতৃভাষার মাধ্যমে পঠন-পাঠন, আগামীদিনে ছাত্র-ছাত্রীদের আরও বেশি করে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রতি আগ্রহী করে তুলবে। প্রথম ধাপে সহ ৮ রাজ্যের ১৪টি কলেজের অন্তত ১০০০ জন পড়ুয়াকে আঞ্চলিক ভাষায় পড়াশোনার অনুমতি দেওয়া হবে। উত্তরপ্রদেশ, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ ও উত্তরাখণ্ডের পড়ুয়াদের হিন্দিতে পড়াশোনা করার সুযোগ দেওয়া হবে। অন্ধ্রপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, পশ্চিমবঙ্গ ও তামিলনাড়ু থেকে আসা ছাত্রছাত্রীদের তাঁদের মাতৃভাষা অর্থাৎ তেলগু, মারাঠি, বাংলা এবং তামিল ভাষায় ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার সুযোগ মিলবে।


অর্থাৎ, AICTE নয়া ঘোষণা অনুযায়ী, ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজগুলিতে এবার থেকে ইংরেজির পাশাপাশি হিন্দি, মারাঠি, তামিল, তেলগু, কান্নাড়া, গুজরাটি, মালয়ালম, বাংলা, অসমীয়া, পাঞ্জাবি এবং ওড়িয়া ভাষায় কোর্স করতে পারবেন পড়ুয়ারা।

উল্লেখ্য, নয়া শিক্ষানীতিতেও মাতৃভাষা ও আঞ্চলিক ভাষায় পঠনপাঠনের উপর জোর দেওয়ার কথা বলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। AICTE এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন উপ-রাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু এবং নয়া কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। দেশের অন্যান্য ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজগুলোতেও মাতৃভাষায় উচ্চশিক্ষা দানের আহ্বান জানান তাঁরা।